আপনার ফাউন্ডেশন কি কেকি হয়ে যাচ্ছে?

আপনার ফাউন্ডেশন কি কেকি হয়ে যাচ্ছে?

পারফেক্ট মেকআপের জন্য চাই নিখুঁত বেজ। কিন্তু এই নিখুঁত বেজ সবসময় নিখুঁতভাবে হয়ে উঠে না। যখন বেজ মেকআপেই ত্রুটি থাকে তখন তা ফাউন্ডেশন কে করে তুলে কেকি ও আঠালো, যা আমরা কেওই চাই না। তাই বলে এই না, আপনি যে প্রোডাক্টটি ব্যবহার করছেন তার মধ্যেই কোন সমস্যা আছে, কিন্তু ভুল থাকতে পারে আপনার মেকআপ ট্রিকস ও স্কিনকেয়ার রুটিনে।

যেসব ভুল এড়িয়ে চললে ফাউন্ডেশন কেকি হবার সমস্যা কমতে পারে

১। এক্সফোলিয়েটিং

যদি আপনার ত্বক রুক্ষ হয়ে থাকে বা কোন ধরণের চামড়া উঠে থাকে এবং তখন যদি আপনি ফেইসে ফাউন্ডেশন ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ফাউন্ডেশন ফেইসে ঠিকভাবে বসবেনা। কারণ আপনার ত্বকের লেয়ারের উপর জমে আছে প্রচুর ডেড স্কিন যা আপনার ফাউন্ডেশনকে ব্লেন্ড হতে দেয়না। এই ডেড স্কিন দূর করতে হলে আপনি ফিজিক্যাল বা কেমিক্যাল এক্সফোলিয়েটর ব্যবহার করতে পারেন।

কারণ এক্সফোলিয়েশনের মাধ্যমে আপনার ফেইসে জমে থাকা ডেড সেল দূর হবে। আর এক্সফোলিয়েটরের পর অবশ্যই একটি ভালো ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে যাতে আপনার স্কিন পুনর্জীবিত হয়। যখন আপনার ত্বকে জমে থাকা পোরস বা ডেড সেল সব দূর হয়ে যাবে তখন মেকআপ সহজে বসবে।

২। ফেইস শেভ বা ওয়াক্স করা

আমাদের থুতনিতে বা মুখের অনেক জায়গা রয়েছে যেখানে কিছু ছোট ছোট চুল থাকে। আমরা যখন ওই চুলের উপর ফাউন্ডেশন ব্যবহার করি তখন ফেইসে মেকআপ ঠিকভাবে বসে না বা অনেক সময় লোমগুলো ফাউন্ডেশনের উপর দিয়ে ভেসে থাকে, যে কারণে মেকআপ স্মুথ হয়না।

৩। ক্লিঞ্জার

সকালে ঘুম থেকে উঠার পর অবশ্যই একটি ভালো ক্লিঞ্জার ব্যবহার করতে হবে যা আপনার ত্বককে মেকআপের জন্য ভালোমত তৈরি করবে।

৪। ময়শ্চারাইজার ও শিট মাস্ক

অনেকে আছেন যারা ময়েশ্চারাইজার ছাড়াই সরাসরি প্রাইমার ব্যবহার করে থাকেন, কারণ প্রাইমার যখন সিলিকন বেজড হয়ে তখন তা আমাদের ত্বককে স্মুথ করে। তবে একই সাথে আমাদের ত্বকে আর্দ্রতার ঘাটতি থাকে তাই ময়েশ্চারাইজার বা শিট মাস্ক অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ধাপ। মাঝে মাঝে   আমাদের ত্বক অনেক বেশি ড্রাই লাগে আর যখন আমরা ফেইস কে নরিশ না করে সরাসরি মেকআপ করি তখন তা ভেসে থাকে। তাই ত্বককে যতটা ময়েশ্চার রাখবেন, তা ততটাই ভালো থাকবে।

৫। আপনার স্কিন টাইপের জন্য সঠিক ফাউন্ডেশন

সব ত্বকে সব ফাউন্ডেশন স্যুট করেনা তবে আপনি যদি আপনার ত্বকের জন্য সঠিক ফাউন্ডেশন ব্যবহার করতে পারেন তাহলে আপনার এই কেকি ফেইসের সমাধান পেয়ে যাবেন, যেমন - অয়লি স্কিন টাইপের জন্য সবচাইতে ভালো হচ্চে ম্যাট ফাউন্ডেশন, আর সাধারণ বা হালকা ড্রাই স্কিন টাইপের জন্য Hydrating to Dewy ফাউন্ডেশন অনেক ভালো কাজ করে।

৬। স্কিনের জন্য সঠিক টুলস

নিখুঁত ফাউন্ডেশন ব্যবহার করতে হলে বেজও নিখুঁত হতে হবে। তাই ফেইসে ফাউন্ডেশন যাতে এর জন্য আপনি কন্সিলার বা ফ্ল্যাট ফাউন্ডেশনের ব্রাশের মাধ্যমে সূক্ষ্মভাবে ধীরে ধীরে ফেইসে ব্রাশ ব্যবহার করতে থাকুন, তারপর স্পঞ্জটি হালকা ভিজিয়ে ফাউন্ডেশন ব্লেন্ড করলে চেহারাতে অন্য ব্রাশের ছাপ, প্যাচি বা কেকি হয়ে থাকবেনা। বিশেষ করে যাদের পোরস রয়েছে তারা কোন ঘন আইশ্যাদ ব্রাশ বা গোলাকার ব্রাশের মাধ্যমে ফাউন্ডেশন ব্যবহার করলে তা পোরসের সাথে ভালোভাবে মিশে যাবে।

৭। বেজ সেট করা

বেজ সেট তো সব ঠিক। স্মুথ মেকআপের জন্য বেজ ঠিক থাকা সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য এই পদ্ধতিতি ব্যবহার করতে পারেন। একটি হালকা ভেজা স্পঞ্জের মধ্যে অল্প পরিমান পাউডার লাগিয়ে নিন। অতিরিক্ত পাউডার হাতের মধ্যে মুছে তারপর মুখে ব্যবহার করুন। এতে আপনার বেজ অনেক স্মুথ ও নিখুঁত হবে।

Leave A Reply