ফাঙ্গাল অ্যাকনে ও তা ন্যাচারালি দূর করার উপায়

ফাঙ্গাল অ্যাকনে ও তা ন্যাচারালি দূর করার উপায়

ফাঙ্গাল অ্যাকনে তা ন্যাচারালি দূর করার উপায়

ফাঙ্গাল অ্যাকনে অন্য সব অ্যাকনের মত নয়। এটি স্কিনের এক ধরণের অবস্থা যাকে Malassezia Folliculitis ও বলা হয়। এসব অ্যাকনের ক্ষেত্রে আপনি যতই AHA, BHA বা কোন একটিভ উপাদান সমৃদ্ধ পণ্য ব্যবহার করে থাকনে না কেন তা ওই সময় কাজ করে না। কারণ তখন ইষ্ট ও ফাঙ্গির মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় আমাদের ত্বকে তখন প্রভাব ফেলে থাকে।

কেন এই ফাঙ্গালের সম্মুখীন হচ্ছেন?

এই ফাঙ্গালের মূল কারণ হচ্ছে আমাদের অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস। মূলত যখন আমরা অতিরিক্ত মাত্রায় এমন খাবার খাই যেসব খাবার খেলে আমাদের শরীরে ইষ্ট বা ফাঙ্গির মাত্রা বেড়ে যায় বা আমরা যখন আমাদের খাদ্য তালিকায় পরিবর্তন আনি তখন এই সমস্যা হয়ে থাকে।

আপনি কিভাবে বুঝবেন যে আপনার কি ফাঙ্গাল অ্যাকনে হয়েছে কিনা?

১। আপনার চেহারায় ছোপ ছোপ আকারে হয়ে থাকেঃ

Pustule, nodule বা অন্য যেকোনো পিম্পল কেবলমাত্র একটি বা ২ টি করে হয়ে থাকে। আর ফাঙ্গাল অ্যাকনে ছোপ ছোপ হয়ে থাকে। প্রথম থেকেই ফাঙ্গাল অ্যাকনের যত্ন না নিলে তা ছড়াতে শুরু করে। আপনার স্কিনে বা যেসব জায়গায় তেল বেশি সেসব জায়গায় সাধারণত ফাঙ্গাল অ্যাকনে দেখা দেয়।

২। ফাঙ্গাল অ্যাকনে সব একই আকারের হয়ে থাকে

৩। অনেক বেশি চুলকায়: অন্য সব পিম্পলের তুলনায় ফাঙ্গাল অ্যাকনে অনেক বেশি চুলকায়

৪। ছড়ানোর সম্ভাবনা বেশি: ফাঙ্গাল অ্যাকনে শুধুমাত্র ফেইসে নয়, আপনার ঘাড়, বুক বা পিঠে দেখা দেয়

৫। মেডিকেশন: ফাঙ্গাল অ্যাকনে বেশিরভাগ সময় কোন ধরণের ফাঙ্গাল মেডিকেশনও সেই সময় কাজ করেনা

 

ফাঙ্গাল অ্যাকনের চিকিৎসাঃ

১। চিনি এবং সকল ধরণের কার্ব এড়িয়ে চলা

আমাদের শরীরের জন্য চিনি অনেক বেশি ক্ষতিকর। তাই আপনি যদি ফাঙ্গাস দূর করতে চান তাহলে সর্বপ্রথমে খাদ্যতালিকা থেকে চিনি বা চিনি জাতীয় খাবার, আলু, পাস্তা ইত্যাদি বাদ দিতে হবে।

২। প্রসেসড ফুড বাদ দেয়া

বেশি বেশি ফ্রেশ সবজি ও ফলমূল খেতে হবে। তার পাশাপাশি ক্যানড ফুড বা প্রসেসড ফুড খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। আর বিশেষ করে কলা খাবেন না, কারণ তাতে অনেক বেশি মাত্রায় মিষ্টি থাকে যা এই সময় আপনার ফাঙ্গাসকে আরও ক্ষতি করতে পারে। সেসব খাবার খেতে পারেন যেটাতে Candida albicans যুক্ত রয়েছে। এখন তা আপনার ইষ্টকে দূর করতে সাহায্য করবে, যেমন - ডিম, জিরা, হলুদ, লেবু, বাদাম ইত্যাদি।

 

৩। আপেল সিডার ভিনেগার

সকালে গরম পানিতে আপেল সিডার ভিনেগার পানিতে মিশিয়ে খেতে পারেন। এটি আপনার শরীরের ph লেভেল ঠিক রাখতে সাহায্য করবে।

 

৪। প্রোবায়োটিকস

যদিও আপনি ঘন ঘন অসুস্থ, হজমে সমস্যা, স্কিন কন্ডিশন বা অন্য কোন কারণে মেডিকেশন বা পিল নিয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই প্রোবায়োটিকস নেয়া উচিত।

 

ফাঙ্গাল প্রতিরোধে দেহের বাইরের সুরক্ষা

১। পরিষ্কার থাকা

বাইরে থেকে বা এক্সারসাইজ করে আসলে দ্রুত গোসল করে নিবেন যাতে আপনার ঘাম থেকে অ্যাকনে ছড়াতে না পারে এবং সিনথেটিক না পরে কটনের কাপড় ব্যবহার করবেন। এটি আপনাকে জ্বালাপোড়া থেকে সুরক্ষিত রাখবে।

 

২। ACV

ফেইসে কটন প্যাডের সাহায্যে টোনারের রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে ACV ব্যবহার করতে পারেন। তাতে জীবাণু দ্রুত মারা যাবে।

Leave A Reply